৩৭ বছরে পা দিয়েছেন বাংলাদেশ ওয়ানডে দলের অধিনায়ক মাশরাফি বিন মোর্ত্তজা। ১৯৮৩ সালের এই দিনে নড়াইল জেলায় জন্মগ্রহণ করেন বাংলাদেশ দলের সফল এই অধিনায়ক। বিশ্বে তিনি নড়াইল এক্সপ্রেস হিসেবে সুপরিচত। কাকতালীয়ভাবে একই দিনে (৫ অক্টোবর) জন্ম তার ছেলে সাহেল মোর্ত্তজারও।

জন্মদিন নিয়ে খুব হাকডাক পছন্দ করেন না মাশরাফি। ভক্তরা তবুও বসে থাকার পাত্র নন। রাজধানীর একটি রেস্তোরাঁয় দোয়া ও মিলাদ মাহফিলে মাশরাফি ও তার ছেলের জন্মদিন পালন করা হয়। এতে উপস্থিত ছিলেন মাশরাফির ছেলে সাহেল মোর্ত্তজা ও ভাই মোরাসালীন মোর্ত্তজা।

আজ শনিবার দুপুরে সারা দেশ থেকে আগত ভক্তরা দোয়া ও মিলাদ মাহফিলের আয়োজন করেন। জন্মদিন উদযাপনের জন্য আজ বিকেলে পরিবারসহ বিদেশে যাবেন মাশরাফি।

৩৭ পা দেওয়া মাশরাফির অভিষেক হয় ২০০১ সালের নভেম্বরে। ৮ নভেম্বর টেস্ট ও ২৩ নভেম্বর ওয়ানডেতে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে পথ চলা শুরু হয় বাংলাদেশ দলের এই নক্ষত্রের। ২০০৬ সালের নভেম্বরেই জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে টি-টোয়েন্টিতে অভিষেক হয় মাশরাফির। টেস্ট ও টি-টোয়েন্টি আগেই ছেড়ে দিলেও ওয়ানডে এখনো খেলে যাচ্ছেন। নেতৃত্বের ভারও তার হাতে।

মাশরাফির ক্যারিয়ার জুড়ে যুদ্ধ করেছেন ইনজুরির সঙ্গে। ২০০৯ সালে অধিনায়কত্বের দায়িত্ব পেয়েও ইনজুরির জন্য মিস করেছেন। এজন্য খেলতে পারেননি ২০১১ সালে ঘরের মাটিতে অনুষ্ঠিত বিশ্বকাপও। ২০১২ সালে আবার ফেরেন পুরোনো প্রতাপে। তার অধিনায়কত্বে বাংলাদেশ নানা সাফল্য পায়। বিশ্ব ক্রিকেটে এক ভয়ংকর নাম হয়ে ওঠে বাংলাদেশ।

২০১৫ অস্ট্রেলিয়া বিশ্বকাপের কোয়ার্টার ফাইনালের পর ২০১৭ সালে চ্যাম্পিয়ন ট্রফির সেমিফাইনালে ওঠে বাংলাদেশ তার নেতৃত্বেই। এবার বিশ্বকাপের আগে আয়ারল্যান্ডের মাটিতে তার নেতৃত্বেই ওয়েস্ট ইন্ডিজকে হারিয়ে প্রথম কোনো আন্তর্জাতিক ট্রফি জেতে বাংলাদেশ। যদিও বিশ্বকাপে খেলতে পারেননি প্রত্যাশা অনুযায়ী।

এখন পর্যন্ত মাশরাফি ৩৬ টেস্ট খেলে ৭৮ উইকেট, ৫৪ টি-টোয়েন্টি খেলে ৪২ উইকেট ও ২১৭ ওয়ানডে খেলে সংগ্রহ করেন ২৬৬ উইকেট। টেস্ট ও টি-টোয়েন্টি থেকে অবসর নিয়েছেন আগেই। ব্যক্তি জীবনে মাশরাফি এক ছেলে ও এক মেয়ের জনক।

HAPPY BIRTHDAY MASH

#BCB #HBDMashrafeBinMortaza